Fiverr হতে পারে আপনার ক্যারিয়র এর পথ । – SoftenextIT Academy

Blog

Fiverr হতে পারে আপনার ক্যারিয়র এর পথ ।

ফাইভার কি?:

ফাইভার হল একটা অনলাইন মার্কেটপ্লেস। এখানে ফ্রিলান্স সেলাররা কোন একটি কাজের জন্য গিগ তৈরী করে। ওই গিগটি যদি কোন বায়ারের দরকার হয় তাহলে গিগটা সে কিনবে। এভাবে ফাইভারে গিগ তৈরী করে আয় করা যায়। ফাইভার হলো একটি ইন্টারন্যাশনাল মার্কেটপ্লেস। এখানে সার্ভিসেস কিনা বেচা হয়। প্রত্যেক সার্ভিসের মূল্য কমপক্ষে ৫ ডলার। যেহেতু এটি একটি অনলাইন মার্কেটপ্লেস সেহেতু এখানে অনলাইন এবং প্রযুক্তি ভিত্তিক বিভিন্ন সেবা বিক্রি করা হয়। ফাইভার এ যে কোন ধরনের সেবা দিয়ে গিগ তৈরি করা যেতে পারে। সেটা হতে পারে একাউন্ট তৈরি করা থেকে শুরু করে সেই একাউন্টকে কম্পিলিট করা পর্যন্ত। এখানে কাজ করতে হলে অবশ্যই কোনো কাজে দক্ষতা অর্জন করতে হবে।

যে কাজে পারদর্শী তেমন কিছু কাজ দিয়ে একাউন্ট সাজিয়ে রাখতে হবে যাতে বায়ারা সেটা দেখে আকষিত হয়। এটাকে ফাইভারের ভাষায় গিগ বলে। আপনার গিগ যত আকর্ষনীয় হবে কাজের তত কাজের অর্ডার আসবে। এইসব কাজ করে দিতে পারলেই ঘরে বসে আয় করা যায়। ফাইভার এ সারা বিশ্বের নানান দেশের অনেক বায়াররা বিভিন্ন ধরনের কাজ দিয়ে থাকে। এখানে অনুবাদের কাজ থেকে শুরু করে গ্রাফিক্স ডিজাইন, মোবাইল অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট এসইও এবং অন্যান্য কাজ পাওয়া যায়।

প্রাথমিকভাবে সহজে কাজ পাওয়ার জন্য নুতন ফ্রিল্যান্সারদের জন্য ভিন্ন ধারার সেরা অনলাইন মার্কেটপ্লেস ফাইভার। ফাইভার ইতিমধ্যে অত্যন্ত জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেস হিসেবে সবার কাছে পরিচিত হয়ে উঠেছে। এ মার্কেটপ্লেসে গিগ এর রেট ৫ ডলার দেখে অনেকে কাজ করতে কম উৎসাহিত হয়। আসলে বিষয়টি ঠিক এরকম না। এ মার্কেটপ্লেসে কাজ করে অনেকে প্রতিমাসে গড়ে ১০০০ ডলারের বেশীও আয় করছেন। এখানে বায়ার নয়, বরং ফ্রিল্যান্সাররাই কাজের অফার টিউন করে থাকে এবং বায়ার উক্ত অফার কিনে নেয়। এখানে প্রতিটি অফার বা কাজকে গিগ বলা হয়। প্রতিটি অফার বা গিগ এর মূল্য মাত্র ৫ ডলার হওয়ায় গিগগুলো দ্রুত সেল হয়ে থাকে। এজন্য দেখা যায়, অনেকেই যারা আপওয়ার্ক, ফ্রিল্যান্সার এ সুবিধা করতে পারছেন না, কিন্তু ফাইভার থেকে ভাল আয় করছেন।

গিগ কি?:

গিগ হল একটা কাজের অফার বা সার্ভিস এর নাম। আমরা ই-কমার্স সাট গুলোতে যেভাবে পন্য অর্ডার করি। ঠিক তেমনি ভাবে এখানে সার্ভিস অর্ডার করা হয়। একটা গিগ বানানোর জন্য এইখানে অফার বা সার্ভিস এর কিছু শর্ত দিতে হবে। যেমন: যদি বলা হয় কাজটি একদিনের ভিতর শেষ করা হবে তাহলে তা একদিনের ভিতরই শেষ করতে হবে। এর জন্য প্রোফাইলে ২৪ ঘন্টা বা এক দিনের একটি টাইমার দেখাবে। একটি সার্ভিস সেল করার জন্য সেটির বর্ণনা যে ঘরে সাজানো হয় তাকেই গিগ বলে। প্রাথমিক ভাবে ফাইবার গিগটির মূল্য $৫ ডলার অফারে বিক্রি করে কাস্টমারের বা বায়ারের কাছে।

মোট কথা আপনি কাজ শিখে যদি ফাইভার মার্কেটপ্লেস এ প্রথম অবস্থায় সময় দেন তাহলে ভালো একটি ইনকাম জেনারেট করতে পারবেন। এখন আমাদের বাংলাদেশ এর যা অবস্থা দিন দিন আমাদের দেশে ফ্রিলান্সারদের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে।